গতকাল শুক্রবার প্রখ্যাত আলেম মুহাম্মদ আলী সাবুনির শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। এই সম্মানিত আলেম না ফেরার দেশে যাওয়ার পর বিশ্বের অনেক মানুষ শোক প্রকাশ করছেন। এদিকে, বাংলাদেশের ইসলামিক বক্তা মিজানুর রহমান আজহারী প্রখ্যাত আলেম মুহাম্মদ আলী সাবুনিকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছে। তার সেই স্ট্যাটাস ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সাড়া ফেলেছে। এই সম্মানিত আলেমর মৃ’’ত্যু’’কা’’লে তার বয়স ৯২ বছর হয়েছিল

সিরিয়ার বিখ্যাত আলেম ও তাফসিরবিশারদ আল্লামা মুহাম্মদ আলী সাবুনি মা’’রা গেছেন। শুক্রবার (১৯ মার্চ) জুমার চার ঘণ্টা আগে তুরস্কের ইয়ালোভা শহরে তিনি মারা যান।

শনিবার (২০ মার্চ) ইস্তাম্বুলের সুলতান মুহাম্মাদ ফাতেহ মসজিদ প্রাঙ্গণে আল্লামা মুহাম্মদ আলী সাবুনির জানাজা হবে।

মুহাম্মাদ আলী সাবুনি আধুনিক যুগে মুসলিম বিশ্বের এক উজ্জ্বলতম নক্ষত্র। জ্ঞান ও গুণের অপূর্ব সমন্বয় ঘটেছিল তার মধ্যে। ইসলামী আইন ও তাফসির বিষয়ক তার রচনাবলি ছাত্র ও শিক্ষকদের কাছে ব্যাপকভাবে সমাদৃত। তার রচিত তাফসির বিষয়ক গ্রন্থ ’সফওয়াতুত তাফসির’ বিশ্বের সব দেশে বহুল প্রচলিত একটি গ্রন্থ। তার অসংখ্য গ্রন্থ বিশ্বের বিভিন্ন ভাষায় অনূদিত হয়েছে।

এ সম্পর্কে বাংলাদেশের জনপ্রিয় ইসলামি বক্তা মিজানুর রহমান আজহারী তার ভেরিফাইড ফেসবুকে আবেগঘন স্ট্যাটাস দেন। নিচে সেটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

"সিরিয়ার প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন শায়েখ ’মুহাম্মাদ আলী আসসাবুনী’ আল্লাহর জিম্মায়। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিঊন। আল্লাহ তা’আলা তাঁর ইলমি খিদমাত কবুল করুন এবং তাঁকে জান্নাতুল ফিরদাউসের সুউচ্চ মাক্বাম দান করুন।

সফওয়াতুত তাফাসির

রওয়াই’উল বায়ান ফি তাফসিরি আয়াতিল আহকাম

ক্ববাসুন মিন নুরিল কুরআন

শায়েখের এই তিনটি বই পড়ে জীবনে অনেক উপকৃত হয়েছি। বিশেষ করে সফওয়াতুত তাফাসির পড়ে। এ তাফসির গ্রন্থটি শায়েখের একটি অনবদ্য সৃষ্টি। কতোজনকে যে এই তাফসির পড়তে বলেছি তার কোন হিসেব নেই। বিখ্যাত প্রায় সকল ক্লাসিকাল তাফসির গ্রন্থের সার নির্যাস বের করে খুব সহজ ভাষায় এখানে তিনি লিপিবদ্ধ করেছেন।

যাদের একাধিক তাফসিরগ্রন্থ ঘাটাঘাটি করার মতো পর্যাপ্ত সময় নেই এবং একটি তাফসির গ্রন্থেই সব সারমর্ম পেতে চান— তাদের জন্য সফওয়াতুত তাফাসির একটি নির্ভরযোগ্য গ্রন্থ।

গতবছর শায়েখ অসুস্থ থাকাকালীন একটি ভিডিও দেখে খুব আবেগাপ্লুত হয়েছিলাম। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে— শায়খকে ঘিরে অনেক লোকজন বসে আছেন এবং একজন মুনশিদ (মু’তাসিম আল-’আসালি) কবিতা আবৃত্তি করে শায়েখের জীবন ও কর্মের বর্ণনা দিচ্ছেন। যারা আরবি বুঝেন ভিডিওটি দেখলে তারা নিশ্চিত আবেগাপ্লুত হবেন"।

এদিকে, এই সম্মানিত আলেম মুহাম্মদ আলী সাবুনির মৃ’’ত্যু’’তে অনেকে শোক প্রকাশ করছেন। এমনকি অনেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাকে নিয়ে নানা রকম লেখালেখি করছেন। তেমনি মিজানুর রহমান আজহারী ওনাকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই স্ট্যাটাস দিলেন। আর তিনি এই সম্মানিত আলেমের তিনটি বই পড়ে অনেক কিছু শিখতে পেরেছেন বলে জানিয়েছেন।