সন্ত্রাসীরা বাধা দিতে আসলে তাদেরকে দলবদ্ধভাবে তাড়া করতে হবে। কারণ এই কাপুরুষেরা বাংলাদেশ ধ্বংস করতে চায়। কাপুরুষদের হাতে বাংলাদেশের জনগণকে তুলে দিবেন না।
চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় চট্টগ্রাম-১৪ (চন্দনাইশ) আসনে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী কর্নেল অলি আহমেদ বলেছেন, সাধারণ মানুষের ওপর ব্যাপক নির্যাতন-নিপীড়ন হয়েছে। অনেকেই জেলে রয়েছেন। বাড়িতে ঘুমাতে না পেরে অনেকেই ধান ক্ষেতে ঘুমাচ্ছেন। মানুষের এমন কষ্ট বাংলাদেশে কখনই ছিল না।
বৃহস্পতিবার ভোটারদের উদ্দেশ্যে ড.কর্নেল অলি আহমদের ভিডিও বার্তায় এসব কথা বলেন।
ভিডিওতে নিজ নির্বাচনী এলাকা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এলাকায় আমাদের সমর্থক ৮০ ভাগ জেনেও কিছু কর্মকর্তা আমদের উপর নির্যাতন করছে। তারা জানে এখান থেকে জিততে পারবে না।
’শেখ হাসিনা বলেছিলেন সব যায়গায় অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন চান। সুতরাং আপনাদেরকে কাছে আমার অনুরোধ যেকোন মূল্যে আপনারা ভোট কেন্দ্রে যাবেন, আমাদের যে অধিকার সেই ভোট আমাদের প্রয়োগ করতে হবে।
কর্নেল অলি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, সন্ত্রাসীরা বাধা দিতে আসলে তাদেরকে দলবদ্ধভাবে তাড়া করতে হবে। কারণ এই কাপুরুষেরা বাংলাদেশ ধ্বংস করতে চায়। কাপুরুষদের হাতে বাংলাদেশের জনগণকে তুলে দিবেন না। আপনারা যদি ১০০/২০০ লোক একসাথে তাদের তাড়া করেন তারা ভয়ে পালাবে।
ঐক্যফ্রন্টের এই নেতা বলেন, আমি আবারও বলছি আপনারা দলবদ্ধভাবে সন্ত্রাসীদের ঠেকান, না হলে সন্ত্রাসীদের রাজত্ব সৃষ্টি হবে। আমরা বাংলাদশে স্বাধীন করেছি আপনাদের জন্য, এদেশ রক্ষা করার দায়িত্ব যুবকদের।
ভোট দিয়ে গণনা শেষ না হওয়া পর্যন্ত বাড়িতে না ফেরার আহবান জানান তিনি।