গত কয়েক বছর ধরে দেশের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল বিএনপি নানা রকম সমস্যার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। গত কয়েক বছরে এই রাজনৈতিক দলটি রাজপথে নেমে বড় কোনো আন্দোলন করতে পারেনি। তবে এই রাজনৈতিক দলটি ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য নানা রকম চেষ্টা করে চলেছে। আর এ জন্য এই রাজনৈতিক দলটি প্রায় সময় মানববন্ধন করে সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলেছে। তেমনি এবার এই রাজনৈতিক দলটি নেতারা আজ একটি মানববন্ধনে অংশ গ্রহণ করে বেশ কিছু বক্তব্য দেন।

এ বছরই সরকার পতনের ঘোষণা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশ্যে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ও কৃষকদলের আহ্বায়ক শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, ’দিন-তারিখ দেবো না, তবে এ বছরের মধ্যে আপনি প্রধানমন্ত্রী বিছানাপত্র গোছাতে পারেন।’

তিনি বলেন, ’শেখ হাসিনা যদি প্রধানমন্ত্রী হতে পারেন, তাহলে তারেক রহমান না হওয়ার কী আছে?’

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে শামসুজ্জামান দুদু আরও বলেছেন, ’এ দেশে বাংলাদেশিরা থাকবে, মুক্তিযো/দ্ধারা থাকবে, গণতন্ত্র ও স্বাধীনতা রক্ষার সৈনিকেরা থাকবে। এ দেশে অন্য কোনও দেশের কোনও দালাল-টালালরা থাকবে না।’

বুধবার (১৩ ডিসেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ঢাকা মহানগর বিএনপির উদ্যোগে দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে এক বিশাল মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে দুদু বলেন, ’স্লোগান দেন আর না দেন আন্দোলন করেন আর না করেন শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকতে পারবে না,পারবে না, পারবে না। চারিদিকে নানা কথাবার্তা ফু/স/ফা/স আমরা শুনতে পাচ্ছি, আপনি (প্রধানমন্ত্রী) কি শুনতে পান না? অবস্থা ভালো না। প্রধানমন্ত্রী, আপনাকে বলি- বিএনপি আপনাকে উৎখাত করতে চায় না। কিন্তু এদেশের মানুষ আপনাকে আর চায় না।’

বিএনপির এই শীর্ষনেতা বলেন, ’বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান এ দেশে আসবেন। তিনি আসবেন এদেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করার জন্য, এদেশের স্বাধীনতা রক্ষার জন্য। তিনি আসবেন এদেশের কৃষকের জন্য শ্রমিকের জন্য, আসবেন এদেশের মেহনতি মানুষের জন্য। তাকে ঠেকাবেন কীভাবে? তিনি ইতোমধ্যে ব্যারিস্টারি পাস করেছেন। আইনের ওপর তিনি বিশেষজ্ঞ পর্যায়ে রয়েছেন। এসব মামলা-টামলা করে লাভ নেই।’

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে দুদু আরও বলেন, ’আপনাদেরকে পার্টি যখন ডাক দেবে আমরা যে যেখানে থাকি না কেন যার যা কিছু আছে তাই নিয়ে সবাই একযোগে রাস্তায় নেমে আসবেন।’

এই বিশাল মানববন্ধনে দলের অনেক সিনিয়র নেতা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া দলের অনেক কর্মী উপাস্থিত হন। দলের অন্য সিনিয়র নেতারা বলেন এই সরকারকে হটাতে সবাইকে রাজপথে নামতে হবে। এ সময় বিএনপির নেতাকর্মীরা ক্ষমতাসীন দলকে হু’শি’য়া’রি দেয়। এছাড়া দলের সকল নেতাকর্মীদের একত্র হতে বলেছে দলের সিনিয়র নেতারা।